‘হোয়াই হাউস থেকে ট্রাম্পকে সরাতে নিজের সব অর্থ ব্যয় করব’

বাহাদুর ডেস্ক :

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে হোয়াইট হাউজ থেকে সরাতে নিজের সব অর্থ ব্যয় করতে প্রস্তুত আছেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির ধনকুবের মাইকেল ব্লুমবার্গ।

স্থানীয় সময় রোববার বার্তা সংস্থা রয়টার্স দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন ব্লুমবার্গ।

দেশটির ২০২০ সালের নির্বাচনে ডেমোক্রেট দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী তিনি।

রিপাবলিক দলের প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবা হচ্ছে তাকে।

ব্লুমবার্গের এমন ঘোষণায় বিস্মিত হয়েছেন ডেমোক্রেট দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী মার্কিন সিনেটর এলিজাবেথ ওয়ারেন।

এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেছেন, ব্লুমবার্গ তাহলে অর্থের বিনিময়ে যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্র কিনে নিতে চাইছেন!

পাল্টা জবাবে ব্লুমবার্গ বলেছেন, ‘এলিজাবেথ ওয়ারেন ইর্ষান্বিত হয়ে এমন মন্তব্য করেছেন’।

তার বক্তব্যে নীতিগত কোনো সমস্যা নেই দাবি করে ব্লুমবার্গ বলেন, তারা নিজেরা যা করতে পারছে না, তা আমি করছি। এতে মনে মনে কষ্ট পাচ্ছেন এলিজাবেথ ও তার সমর্থকরা। তাই গণতন্ত্র কিনে নেয়ার মন্তব্য করছেন।

প্রতিদ্বন্দ্বীরা যাই মন্তব্য করুক; ট্রাম্পকে সরানোর ক্ষমতা একমাত্র ব্লুমবার্গেরই আছে বলে ধারণা এখন অনেক মার্কিন নাগরিকদের।

বিশেষকরে গত কয়েক সপ্তাহে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্লুমবার্গের পক্ষে শক্ত একটি জনমত গড়ে উঠতে দেখা গেছে।

সম্প্রতি মার্কিন এই ধনকুবেরের প্রশংসায় দেশটির নেটিজেনরা নানা পোস্ট দিচ্ছেন।

প্রসঙ্গত ফোর্বস ম্যাগাজিনের মতে যুক্তরাষ্ট্রের অষ্টম শীর্ষ ধনী মাইকেল ব্লুমবার্গ। তিনি ডেমোক্রেট দলের অন্যতম মনোনয়ন প্রত্যাশী।

যদিও প্রতিদ্বন্দ্বীদের তুলনায় এক বছর পর নির্বাচনি প্রচারণা শুরু করেছেন তিনি।

তার আগে ডেমোক্রেট দলে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের তালিকায় রয়েছেন – জো বাইডেন, বার্নি স্যান্ডার্স, এলিজাবেথ ওয়ারেন, পিটি বুট্টিগেইগ।

সে হিসেবে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন দৌড়ে ডেমোক্রেট শিবিরের পঞ্চম প্রতিদ্বন্দ্বী ব্লুমবার্গ।

টি.কে ওয়েভ-ইন