আজ রবিবার ১লা কার্তিক, ১৪২৮, ১৭ই অক্টোবর ২০২১

||
  • প্রকাশিত সময় : মে, ১২, ২০২০, ৬:০৫ অপরাহ্ণ




সাহিত্য-সংস্কৃতির ক্ষেত্রে প্রতিশ্রুতিশীল সাংবাদিক শাহীন

কাজী এমএ মোনায়েম :
সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন শাহীন প্রতিশ্রুতিশীল সাহিত্য-সংস্কৃতির ক্ষেত্রে অসাধারণ কাজ করে যাচ্ছেন। তাঁর নিজের প্রতিভা আর অবদানের জোরেই সে সম্মানের প্রাপ্য। সে স্মরণীয় হয়ে আছে তাঁর বিভিন্ন সাহিত্যকর্মের মাধ্যমে। সে আমার স্নেহধন্য ছাত্র। তাঁকে জানাই অভিনন্দন। তাঁর কাজে আমি তাঁকে সম্মানিত করতে চাই। সে অনেক গুণে গুণান্বিত। লেখালেখিতে ওঁর হাত বেশ স্বাচ্ছন্দ। ওঁর পরিকল্পনায় গৌরীপুর থেকে লিটল ম্যাগাজিন, কবিতা পাঠের আসর, দেয়াল পত্রিকা, পত্রিকায় ক্রোড়পত্র ইত্যাদি প্রকাশিত হচ্ছে। কাজের প্রতি প্রবল উৎসাহ রীতিমতো মুগ্ধ হবার মতো। আমি তাঁকে ব্যক্তিগতভাবে পছন্দ করি।
জীবনের চাওয়া-পাওয়া নিয়ে তেমন আকুলতা নেই। শৌখিন জীবন আকর্ষণ করলেও যে সাধ্য তাঁর নেই। সদালাপী, ভদ্র মাঝে-মধ্যে হতাশ হতে দেখি। তাঁর চারপাশে যেনো দেয়াল। বিভিন্ন স্বপ্ন যখন প্রজাপতির মতো ডানা মেলে উড়ে বেড়ানোর সময়, সেই থেকেই সাংবাদিক হবার ইচ্ছে তাঁর। তাঁর বুকে লালন করে অনেক স্বপ্ন। ছাত্রজীবন থেকেই লেখালেখির কাজের সাথে জড়িত।
ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর উপজেলার মইলাকান্দা ইউনিয়নের কাউরাট গ্রাম। এই গ্রামেই বাবা মরহুম আফাজ উদ্দিন আহম্মদ, মাতা মরহুমা আনোয়ারা বেগমের গর্ভে ১৯৬৮ সালের ১ ডিসেম্বর নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার গগডা গ্রামে মাতুলালয়ে জন্মগ্রহণ করেন। ১ ছেলে, ১ মেয়ে ও স্ত্রী নিয়ে সংসার। গগডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাথমিক শিক্ষা সমাপ্ত করে গৌরীপুর রাজেন্দ্র কিশোর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও গৌরীপুর কলেজ থেকে বিএ পাশ করে। লেখাপড়ার পাশাপাশি সে সাংবাদিকতা ও শিক্ষকতা পেশায় যোগ দেয়। স্থানীয় অগ্রদূত নিকেতন উচ্চ বিদ্যালয়ে কিছুদিন শিক্ষাকতা করে। পরে সাংবাদিকতাকে মনেপ্রাণে ভালোবাসে বিধায় সারাজীবন এই পেশা ছাড়া অন্য কোনো কর্মে নিজেকে সম্পৃক্ত করেনি। সাংবাদকিতা শুরু ঢাকা থেকে প্রাকশিত সাপ্তাহিক কথা, সাপ্তাহিক সভ্যতা ও সাপ্তাহিক নতুন বাংলার মধ্যদিয়ে। পরবর্তীতে ১৯৯১ সালে গৌরীপুর থেকে ’মাসিক পাতা’ প্রকাশনার সাথে যুক্ত হয়ে এর বার্তা সম্পাদক-এর দায়িত্ব পালন করে। ৯০-এর দশকে ময়মনসিংহ থেকে ‘দৈনিক সবুজ’ প্রকাশিত হলে নিজস্ব সংবাদদাতা হিসাবে যোগ দেয়। ২০০২ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর গৌরীপুর থেকে পাক্ষিক পত্রিকা ‘সুবর্ণ বাংলা’ প্রকাশিত হলে পত্রিকাটির বার্তা সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে। এরপর জাতীয় পত্রিকা ’দৈনিক ডেসটিনি’ প্রকাশিত হলে এতে গৌরীপুর উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে সে নিয়োগ পায়। সুবর্ণ বাংলা প্রকাশনা বন্ধ হয়ে গেলে ২০১৪ সালে ’সাপ্তাহিক রাজগৌরীপুর’ এর নির্বাহী সম্পাদক হিসেবে যোগ দেয়। ’দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশ’ পত্রিকায় সে বেশ কিছুদিন কাজ করে। তাছাড়া দেশের একমাত্র সংগীত বিষয়ক ম্যাগাজিন ’মাসিক সংগীত’ এ লেখালেখি করে। লেখালেখির পাশাপাশি সে সাহিত্য সাময়িকী প্রকাশ-সম্পাদনা করে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ২০১১ সালে দৈনিক ডেসটিনি বন্ধুজন গৌরীপুর শাখার উদ্যোগে বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে ’বন্ধন’। একই বছর ছড়াকার আজম জহিরুল ইসলামের ৫১তম জন্মদিন উপলক্ষে বিশেষ সংখ্যা ’নিবেদন’ প্রকাশ করে। ২০১২ সালের ১৪ আগস্ট শুধুমাত্র গৌরীপুরের তথ্য ও বিষয় নিয়ে ‘আমাদের গৌরীপুর’ নামে একটি সাময়িকী সম্পাদনা করে। ২০১২ সালে ২২ অক্টোবর সাহিত্য-সংস্কৃতি-শিল্প বিষয়ক ম্যাগাজিন ‘গৌরবগাথা গৌরীপুর’ প্রকাশ করে। ২০১৩ সালের ৯ জানুয়ারি আমার ৬১তম জন্মদিন উপলক্ষে ‘অবয়ব’ নামে আমার জীবনকর্মের উপর বিশেষ সংখ্যা সম্পাদনা করে ও প্রেসকাবে কেক কেটে চমৎকার অনুষ্ঠান করেছিল শাহীন। আমার গ্রন্থের পাণ্ডুলিপি কাজের সময় সে আমাকে ব্যাপক সহযোগিতা করে। তাঁর সংগ্রহে বহু মূল্যবান তথ্য, ছবি দিয়ে সহযোগিতার হাত বাড়ায়। পরে গ্রন্থটি ২০১৫ সালে ‘গৌরীপুরের ইতিহাস-ঐতিহ্য-কিংবদন্তী’ নামে গ্রন্থটি প্রকাশিত হলে বন্ধুজনের উদ্যোগে গৌরীপুর সরকারি কলেজে গ্রন্থটির প্রকাশনা উৎসব করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের (পিআইবি) তৎকালীন মহাপরিচালক শাহ আলমগীর আসন অলংকৃত করেন। তাছাড়া বর্তমান ময়মনসিংহ বিভাগের মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের পরিচালক অধ্যাপক আজহারুল হকের গবেষণামূলক গ্রন্থ ’কোরআনের নির্দেশনা জীব বৈচিত্র্য’ গ্রন্থ লেখায় বইটির প্রকাশনা উৎসব ও লেখককে সংবর্ধনা প্রধান করেছিল। আমার প্রিয় ছাত্র শাহীন চাঁদের হাটের দেয়ালিকা ’অগ্রদূত’, উচ্চারণ সাহিত্য সংসদের ’উচ্চারণ’ ও সর্বশেষ ২০১৯ সালে গৌরীপুর থানার সাবেক অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহ আল মামুনের পৃষ্ঠপোষকতায় মহান একুশের ডিজিটাল দেয়াল পত্রিকা ‘রক্তশপথ’ এর সম্পাদনা করে। সাপ্তাহিক রাজগৌরীপুর পত্রিকার সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. ক্যাপ্টেন (অব.) মজিবুর রহমান ফকির এমপির মৃত্যুতে তাঁর স্মরণে শোকপত্র, ’৬৯-এর গণআন্দোলনে ’শহীদ হারুণের স্মরণে ও দৈনিক শাশ্বত বাংলা পত্রিকায় ‘গৌরীপুরের প্রথম শহীদ শিক্ষক ব্রজেন বিশ্বাস’কে নিয়ে ক্রোড়পত্র প্রকাশ করে।
সে সাংবাদিকতার পাশাপাশি রাজনৈতিক ও সামাজিক কর্মকাণ্ডে জড়িত। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ গৌরীপুর কলেজ শাখার সভাপতি, উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক, পৌর আওয়ামী যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক, যুব শ্রমিক লীগের উপজেলা ও পৌর শাখার উপদেষ্টা, কমিউনিটি পুলিশিং-এর গৌরীপুর পৌর শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছে। সেই সাথে পাঠক সংগঠন ‘বন্ধুজন’ গৌরীপুর শাখার উপদেষ্টা। বন্ধুজন পাতা বিলুপ্ত হলে পরবর্তীতে গৌরীপুর বন্ধুজন সাহিত্য সাংস্কৃতিক পরিষদের সভাপতি, শিশু কিশোর যুব কল্যাণ সংগঠন অগ্রদূত চাঁদের হাটের সাংগঠনিক সম্পাদক, মোহামেডান স্পোর্টিং কাবের সাহিত্য-সংস্কৃতি সম্পাদক, উচ্চারণ সাহিত্য সাংস্কৃতি সংসদের সহ-সভাপতি, গৌরীপুর সংগীত নিকেতনের পরিচালনা পরিষদের সম্মানিত সদস্য, গৌরীপুর প্রেসকাবের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে। এর মধ্যে বহু সংগঠন আজ বিলুপ্ত ।
বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট (পিআইবির) আয়োজিত ২০১৩ সালে সাংবাদিকতায় বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ, ২০১৪ সালে বিসিজেডিসির লোকাল গভর্নমেন্ট রিপোর্টিং, একই বছর গণসচেতনা বৃদ্ধিতে গণমাধ্যমের ভূমিকা শীর্ষক প্রশিক্ষণ, ২০১৯ সালে শিশু ও নারী উন্নয়ন সচেতনমূলক রিপোর্টিং এ প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন।
১৯৮৩ সালে ৬ষ্ঠ জাতীয় বিজ্ঞান সপ্তাহ প্রজেক্ট প্রদর্শনীতে প্রথম পুরস্কার, ১৯৯২ সালে ১৫তম জাতীয় দিবসে বাংলাদেশ ছাত্র সমিতির আহূত প্রশ্ন-উত্তর প্রতিযোগিতায় বৃহত্তর ময়মনসিংহে বিজয়ী হয়। সাংবাদিকতা আলোকচিত্রের ক্ষেত্রে প্রসংসনীয় ও গৌরবোজ্জ্বল অবদানের জন্য ‘বীরাঙ্গনা সখিনা সিলভার পেন অ্যাওর্য়াড’ লাভ করে শাহীন।
সাাংবাদিক আনোয়ার হোসেন শাহীন গুণীজনদের জীবদ্দশায় সাক্ষাৎকার নেয়ার সুযোগ হয়েছে। এর মধ্যে ইল্লেখযোগ্য বৃটিশ বিরোধী আন্দোলনের নেতা কমরেড মোক্ষদা চরণ দাস, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হাতেম আলী মিয়া এমসিএ, ভাষাসৈনিক ডা. এমএ সোবহান, গৌরীপুরের আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি খালেদুজ্জামান, স¦াস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. ক্যাপ্টেন মজিবুর রহমান ফকির এমপি, ১১নং সেক্টরের সাব-সেক্টর কমান্ডার তোফাজ্জল হোসেন চুন্ন মিয়া, কোম্পানি কমান্ডার রফিকুল ইসলাম, ’৬৯-এর গণআন্দোলনের ভিপি ফজলুল হক, মুজিববাহিনীর কমান্ডার মুজিবুর রহমান, যাত্রা জগতের সুদর্শন নায়ক এম, আলিম, নায়িকা ভারতী রাণী দত্তের অজানা কথা গণমাধ্যমে তুলে ধরে। বিশিষ্ট নাট্য ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এমজি রফিক, দেশসেরা বিবেক গৌরাঙ্গ আদিত্য, ডা. মুক্তাদির, বিখ্যাত বাউল শিল্পী নেওয়াজ আলী ফকির, নাট্যাঙ্গনের গুণীমুখ পরিতোষ রঞ্জন সরকার, মুক্তিযুদ্ধের সেবাদানকারী ডা. অনিল চন্দ্র সরকার, বাউল মাহতাব উদ্দিন, পালাকার শ্যামাচরণ, ওস্তাদ সুবোধ চন্দ্র দাস, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ইকবাল হাসান, কৃষি যন্ত্রপাতি আবিস্কারক কেনু মিস্তুরী, কৃতি ক্রিকেটার সানোয়ার, কৃতি সংগীত শিল্পী সানিয়া সুলতানা লিজা প্রমুখদের কথাও পত্রিকার পাতায় প্রকাশ করে।
গৌরীপুরের ইতিহাস-ঐতিহ্যসহ নানা বিষয় নিয়ে লিখছে আনোয়ার হোসেন শাহীন। এর মধ্যে কয়েকটি শিরোনাম, গৌরীপুরের জমিদার ও প্রজাকল্যাণে ভূমিকা’, ‘জমিদার বাড়ি, রামগোপালপুরের সিংহ দরজা, কিংবদন্তীর নায়ক খাজা ওসমান খাঁর কেল্লা, বীরাঙ্গনা সখিনা মাজার সম্ভাবনাময় পর্যটন কেন্দ্র, এক সময়ের গৌরীপুরের নাট্য মন্দির, রামগোপালপুরের জমিদারের অনেক ঐতিহ্য আজ বিলপ্তরি পথে, কালের আবর্তে হারিয়ে যাচ্ছে কারুকার্যমণ্ডিত শিবমন্দির, কিশোর জুলফিকারের পাঠাগার, রণাঙ্গন থেকে রণাঙ্গণে পর্ব (১ ও ২), নারী শিক্ষার আদর্শ বিদ্যাপীঠ গৌরীপুর ডিগ্রি মহিলা কলেজ, বোকাইনগরের প্রাচীন মঠ, এই পৃথিবী যেমনে আছে তেমনি পড়ে রবে, দক্ষ কাঠমিস্তুরী চাঁন মিয়া, পাটার কারিগর আ. রহিম, শতবর্ষী গাছ, রাজরাজেশ্বরী মহাদেবী কালীবাড়ি, কেরামতিয়া মসজিদ, গজু মড়লের অভিশপ্ত প্রাসাদ, মোগল স্মৃতিবিজড়িত শাহী মসজিদ, হযরত নিজাম উদ্দিন (রহ.) আউলিয়ার ইদারা, শহীদ হাফিজ যুদ্ধে গিয়ে কী ভুল করেছিল? শহীদ মাতা মির্জেন্নেছা আর ভিক্ষা করতে চান না, বঞ্চিতই থেকে গেলেন শহীদ মাতা মির্জেন্নেছা, মেয়েটির সংসার করা হলো না, মাছ ধরার হিড়িক, পলাশকান্দা ট্র্যাজেডি, বামন যাত্রাশিল্পীর কথা, পরিশ্রমী সবজি চাষী বাসার, নাম যার শহর আলী ওরফে টাউন আলী, সাড়ে ১৫ বছরেও গৌরীপুর আওয়ামী লীগের সম্মেলন নেই, চিরকুট লিখে চুরি, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ বিজয় ’৭১, গৌরীপুরের যাত্রাশিল্প আজ শুধু অতীত ইতিহাস, নাট্যজন রামকৃষ্ণ সরকার, বাউল মাহতাব উদ্দিনের সুখ-দুঃখের কথামালা, যাত্রাশিল্পী বীনা রাণীর কথা, জন্মান্ধ বাউল বাচ্চুর জীবন সংগ্রাম, হাতিম উদ্দিন বয়াতীর কষ্টের দিনলিপি, পাঁচ পা-ওয়ালা গরু, ছাতার কারিগরদের দিনকাল, জল বুরুঙ্গা, সাংসদ নজরুলকে হত্যার উদ্দেশ্যে তার উপর কোস্টার চালানো হয়েছে, কর্মসূচি ছাড়াই চলে গেলো শালীহর গণহত্যা দিবস, গৌরীপুরের প্রথম শহীদ ব্রজেন বিশ্বাসকে কেউ মনে রাখেনি : বুদ্ধিজীবী তালিকায় নেই তার নাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন এমপিকে নিয়ে বিশেষ সম্পাদকীয়, গৌরীপুরে ক্যাপ্টেন (অব.) মজিবের অনন্য স্থাপত্য কীতি বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় চার নেতার ভাস্কর্য, ভাষাসৈনিক আশোতোষ রায় ও ডা. এমএ সোবাহানকে সংবর্ধনা, মুজিবভক্ত ইন্নছ আলী, একান্ত সাক্ষাৎকার স¦াস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. ক্যাপ্টেন মুজিবুর রহমান ফকির এমপি, হাসপাতাল নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হলে গরীব ও সাধারণ রোগীরা চিকিৎসা পাবে, সংগ্রামী জননেতা বিধুভূষণ দাস, কিশোর মুক্তিযোদ্ধা রহুল আমিন যুদ্ধাপরাধীদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত দাবি করেন, শিল্পী দম্পত্তি শীলাসাহা-বাদল সাহা।
প্রসঙ্গ : উত্তর আকাশ, (সমালোচনা) সাহিত্য পত্রিকা পাতা (ধারাবাহিক), সাহিত্যিক গোলাম সামদানী রোরায়াশীর জীবন ও কর্ম, নিজ গ্রামে হূমায়ুন আহমেদ ও শেষ পদধুলি, কবি নূরুল অবেদীন ছড়ায়-ছন্দে যার পথচলা, কবি শওকত আলীর সাহিত্য কর্ম, কথা সাহিতিক ফজলুল হক : সময়চিত্রকে ধারণ করে আঁকেন মানুষের সুখ-দুঃখের নানাচিত্র, বহুমুখি প্রতিভার অধিকারী আজম জহিরুল ইসলাম, সন্তোষ দাকে যেমন দেখেছি, একজন রাখাল বিশ্বাস, যিনি কর্মগুণে বেঁচে থাকতে চান, নন্দিত কথাসাহিত্যিক হূমায়ুন স্মরণে, সাংবাদিক মুজিবুরকে নিয়ে টুকরো স্মৃতি, কথাশিল্পী লুৎফুর রহমান একজন গল্পকার ও বীর মুক্তিযোদ্ধা, মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ চিকিৎসাসেবার পাশাপাশি সাহিত্য সেবায় মগ্ন রয়েছেন, বর্ষীয়ান রাজনীতিক মৌলভী আ. ওয়াহেদ বোকানগরী, কিছু স্মৃতি কিছু কথা, মাকে মনে পড়ে, আমরা যাঁদের হারিয়েছি, গৌরীপুর প্রেসকাবের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস, গৌরীপুরের পত্রপত্রিকা ও ক্যাপ্টেন মুজিব, গৌরীপুরের রাজনীতি ও ক্যাপ্টেন মুজিব, নৌকা জিতলে জিতে যাবে বাংলাদেশ। নৌকার জয় ও উন্নয়ন, জাতির জনকের কিছু উক্তি, চার দশক পেরিয়ে বঙ্গবন্ধু, বঙ্গবন্ধুর ছেলেবেলা, প্রসঙ্গ ৭ মার্চ ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতিধন্য গৌরীপুর, ইসলাম ও বঙ্গবন্ধু, গৌরীপুরকে জেলা ঘোষণার যুক্তিকতা, ’৬৯-গণঅভ্যূত্থান ও শহীদ হারুণ : ৪৭ বছর পর শহীদ হারুণের নামে বিজ্ঞান ভবন, একান্ত সাক্ষাৎকার মুক্তিযোদ্ধা আ. রহিম, স্বপ্ন-সৌহার্দের ডাক দিয়ে যায় বাংলা মঞ্চ, অনস্ববল থিয়েটারের প্রযোজনা নাটক প্রসঙ্গ : ‘কোর্ট মার্শাল’ (নাট্য সমালোচনা), যাত্রাপালা প্রসঙ্গ : ‘মা মাটি মানুষ’ (সমালোচনা) ইত্যাদি।
ফিচার লেখক, সমালোচক প্রতিশ্রুতিশীল সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন শাহীন লেখালেখিসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের মাধ্যমে বিভিন্ন অনুষ্ঠানাদি করে এলাকায় ছড়িয়ে দিচ্ছে সাংস্কৃতিক চেতনা, মানুষকে দিয়ে যাচ্ছে বিনোদন। এসব সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড করতে সে আনন্দ পায়। তাঁর এই কর্ম অব্যাহত থাক, এই প্রত্যাশা সকলের।

(এই লেখাটি সাংবাদিক প্রিয় শিক্ষক কাজী এম.এ মোনায়েম স্যারের শেষ লেখা, যা শেষ হয়নি)

প্রসঙ্গত : গৌরীপুর প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, দৈনিক সংবাদের সাবেক প্রতিনিধি, গৌরীপুর সরকারি কলেজের প্রাক্তন অধ্যাপক, হাজী কাসেম আলী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ, যুগান্তর স্বজন সমাবেশের সাবেক সভাপতি, অন্যচিত্র উন্নয়ন সংস্থার অনারারী চেয়ারম্যান প্রফেসর কাজী এম.এ মোনায়েম (৭৩) গত শুক্রবার (২৪ এপ্রিল/২০২০) দুপুর চিরনিন্দ্রায় শায়িত হন। আমরা তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।

কাজী এম.এ মোনায়েম বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএসসিসি) এর অনারারী ক্যাপ্টেন হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি অসংখ্য শিক্ষামূলক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। গৌরীপুর ইতিহাস ও কিংবদন্তী গ্রন্থের লেখক।




Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও খবর




অনলাইন জরিপ

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেছেন, ক্ষমতা ছাড়তে না চাওয়াই অপসংস্কৃতি। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?

View Results

Loading ... Loading ...

পুরনো সংখ্যার নিউজ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১