সাংবাদিকদের বেতন ও বকেয়া পরিশোধের নির্দেশ তথ্য মন্ত্রীর সরকারি অনুদান ও রেশনিং ব্যবস্থা চালুর আশ্বাস

অনলাইন ডেস্ক :
করোনার সংকটকালে ঝুঁকি নিয়ে সংবাদ পরিবেশন করায় সাংবাদিকদের জন্য প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ঘোষিত প্রণোদনা থেকে আর্থিক সহায়তার দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিক ইউনিয়নের নির্বাচিত নেতারা। পাশাপাশি দুর্যোগের এই কঠিন সময়ে সকল সাংবাদিকের জন্য সরকারের কাছে রেশনিং ব্যবস্থা চালুরও দাবি জানান তারা। এজন্য মন্ত্রীর আহবানে সাংবাদিকদের প্রণোদনা ও রেশনিং সুবিধার জন্য তথ্যমন্ত্রীর কাছে একটি তালিকা হস্তান্তর করেন বিএফইউজে ও ডিইউজের নেতৃবৃন্দ।
মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপির কাছে সারাদেশের ৫ হাজার ৭ শ’ ৭১ জনের তালিকা হস্তান্তর করেন। এরমধ্যে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্য ৩ হাজার ১শ’ ৬০ জন।
এ বৈঠকে, বিভিন্ন মিডিয়ায় বেতন-ভাতা ও ছাটাই-চাকুরীচ্যুতির বিষয় নিয়েও আলোচনা হয়েছে। সাংবাদিকদের বেতন ও বকেয়া পাওনা অবিলম্বে পরিশোধ করতে টিভি ও পত্রিকার মালিকদের আলাদা চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। ডিএফপির ডিজিকে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা দেন মন্ত্রী।
এ সময় তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আজ বিএফইউজে ও ডিইউজে’র পক্ষ থেকে সারাদেশের সাংবাদিকদের একটি তালিকা দেওয়া হয়েছে। তাদেরকে কিভাবে রেশনিংয়ের আওতায় আনা যায়, সেটি আমরা আলোচনা করেছি। একই সাথে কিভাবে আর্থিক সহায়তা করা যায়, সেটিও আলোচনা হয়েছে।’
তিনি বলেন, ‘যেহেতু সাংবাদিকরা ঝুঁকির মধ্যে থেকে কাজ করছেন, সংবাদ পরিবেশন করছেন এবং করোনা মোকাবিলাতেও তারা কাজ করছেন, “আমরা আশা করছি, শিগগিরই তাদের জন্য ইতিবাচক কিছু করতে আমরা সক্ষম হবো l’
বৈঠকে বিএফইউজে সভাপতি মোল্লা জালাল, মহাসচিব শাবান মাহমুদ, ডিইউজে সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ ও সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ আলম খাঁন তপু উপস্থিত ছিলেন।
সূত্র ও কৃতজ্ঞতা :
Quddus Afrad