মাস্ক বিক্রেতাকে ভয় দেখিয়ে চাঁদা দাবি, পুলিশ ক্লোজ সাংবাদিক বরখাস্ত

অনলাইন ডেস্ক :

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে নারায়ণগঞ্জ ফেরত এক মাস্ক বিক্রেতাকে ভয় দেখিয়ে চাঁদা দাবির অভিযোগে মানিক মিঞা নামে এক পুলিশের সাব ইন্সপেক্টরকে ক্লোজ করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এম সানোয়ার হোসেন নামে এক সাংবাদিককেও সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া মডেল থানার সাব-ইন্সপেক্টর (এসআই) মানিক মিয়া চিকিৎসার জন্য ছুটিতে যান। এরই মধ্যে (২৩ এপিল) বৃহস্পতিবার পাশের তাড়াশ থানার তালম ইউনিয়নের তালম শিপপাড়া গ্রামে আবুজল নামে এক মাস্ক বিক্রেতার কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। এ কাজে তাকে সহায়তা করেন দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকার তাড়াশ সংবাদদাতা, চ্যনেল এস টিভির তাড়াশ প্রতিনিধি ও তাড়াশ প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক এম সানোয়ার হোসেন সাজু। পরে দুই হাজার ছয়শ টাকা নিয়ে তারা সেখান থেকে সটকে পড়েন। এরপর ভুক্তভোগীর স্ত্রী মুরশিদা খাতুন নিজেই উল্লাপাড়া মডেল থানার ওসির কাছে অভিযোগ করেন। একই সাথে স্থানীয় সাংবাদিকদেরও অবগত করেন।

এদিকে পুলিশ ও সাংবাদিকের চাঁদা দাবির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা মুহুর্তেই ভাইরাল হয়।

উল্লাপাড়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক কুমার বলেন, পুলিশ সুপার কার্যালয় থেকে এক আদেশে বুধবার রাতে এসআই মানিক মিয়াকে পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়েছে।

এসআই মানিক মিয়া বলেন, তিনি সাংবাদিক সানোয়ারের সাথে ঘুরতে গিয়েছিলেন মাত্র।

তাড়াশ প্রেসক্লাবের সভাপাতি সনাতন দাশ বলেন, প্রাথমিকভাবে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় শুক্রবার তাড়াশ প্রেসক্লাবের এক জরুরি সভায় অভিযুক্ত সাংবাদিককে গঠনতন্ত্র মোতাবেক সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। একই সাথে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।