বিশ্ব গ্রামীণ নারী দিবস আজ ॥ পুরনো খোলস ভেঙ্গে প্রযুক্তির সমতালে

প্রধান প্রতিবেদক :

কলসি কাঁখে মেঠো পথে হেঁটে চলা, ঢেঁকির তালে হেলেদুলে ধানভানা। সেই চিরচেনা গ্রামীণ নারীর ছবি আজ তার খোলস ভেঙ্গে পুরুষের পাশাপাশি চলতে যেমন শিখেছে; তেমনি সমাজের উন্নয়নে নানাভাবে অবদান রাখছে। শিক্ষা, চাকরি, রাজনীতি, খেলাধুলাসহ ব্যবসাবাণিজ্যের ক্ষেত্রেও পিছিয়ে নেই গ্রামীণ নারীরা। বিশ্ব গ্রামীণ নারী দিবস আজ।

তথ্য-প্রযুক্তি’র ব্যবহার তৃণমূল নারীদের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়ে বাণিজ্যের ক্ষেত্রে নতুন দিগন্তের উন্মোচন করেছে। সাধারণ ব্যবসা ছাড়াও অনলাইনেও তারা যথেষ্ট সক্রিয়। তাদের ব্যবসা বাণিজ্যও আজ বাহির থেকে শুরু করে বেডরুম পর্যন্ত বিস্তৃত হয়েছে। ঘরে বসেই তারা তাদের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়ে তাদের উৎপাদিত পণ্য ছড়িয়ে দিচ্ছেন দেশব্যাপী। আজ গ্রামীণ মেয়েরা সেই পাড়াগাঁয়ের মেয়ে নেই! ময়মনসিংহের গৌরীপুরে গ্রামীণ নারীরা অর্থনীতি চাকাকে বেগবান করতে কোভিড-১৯’র দুর্যোগকালীনে প্রসার ঘটেছে অনলাইন ব্যবসার। যা প্রবেশ করেছে মেঠোপথ ধরে গ্রামে-গ্রামে। এ পথে পা বাড়িয়ে স্বাবলম্বী তাছলিমা সাথী। ই কমার্স প্লাটফর্ম ডড়সবহ ধহফ ব- পড়সসবৎপব ভড়ৎঁস (ডঊ) উই এর লাখপতি’র তালিকায় ঠাঁই করে নিয়েছেন তিনি। গৌরীপুর পৌর শহরের শান্তিবাগের একেএম সাজ্জাতুল ইসলাম বিপুলের স্ত্রী।

জুন মাসে প্রথম অনলাইন ব্যবসা শুরু করেন। সেপ্টেম্বর মাসে অনলাইনে অর্ডার পান এক লাখ টাকার। নিজের বেডরুমকেও সাজিয়েছেন বাণিজ্যিকভিত্তিতে। অত্যাধুনিক ও নতুন ডিজাইনের পোশাক সরবরাহের কারণে ইতোমধ্যে এলাকায় ব্যাপক জনপ্রিয়। সিংহভাগ কাস্টমার গৃহবধূ আর স্কুল-কলেজের ছাত্রী। সফল এ নারী উদ্যোক্তা তাছলিমা সাথী ময়মনসিংহের সদরের রাঘবপুর এলাকায় জন্মগ্রহণ করেন। লেতুমন্ডল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, মুমিনুন্নিসা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক এবং ত্রিশাল কবি কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। দেশের নারী উদ্যোক্তাদের বড় ই-কমার্স প্লাটফর্ম ডড়সবহ ধহফ ব- পড়সসবৎপব ভড়ৎঁস (ডঊ) উই এর মাধ্যমে অসংখ্য নারী এখন উদ্যোক্তা। গৌরীপুর থেকে অনলাইনের মাধ্যমে দেশজুড়ে পৌঁছে যাচ্ছে সৌখিন পিঠা, শিশুদের পোশাক, সৌখিন উপকরণ ও নারীদের বাহারী পোশাক।
অপরদিকে চারুলতা। সাহসী এক নারী যোদ্ধার বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান। নারীদের পোশাক নিয়ে ৪বছর ধরে কাজ করছেন সোমা গৌড়। এ বছর শুরু করেছেন অনলাইনেও। সরাসরি মার্কেটিং ও অনলাইন দু’জগতে সমতালে সফল নারী উদ্যোক্ত তিনি। সকল শৃঙ্খল ভেঙে সোনালী ব্যাংকের নিচতলায় নারীদের বিশ্ব প্রতিষ্ঠান এখন চারুলতা। তিনি বলেন, আলস্য ছেড়ে শ্রম-মেধা-দৃঢ়তাই পারে সকল প্রতিকূলতা দূর করে সফলতার গন্তব্যে পৌঁছা। গৌরীপুর উপজেলার রামগোপালপুর, ডৌহাখলা, অচিন্তপুর, মাওহা, সহনাটী, মইলাকান্দা, সিধলা, বোকাইনগর, ভাংনামারী ইউনিয়ন ও পৌরসভায় ২৮টি বাজারে প্রায় ৫শতাধিক নারী উদ্যোক্তা শুধু মাত্র পোশাক ব্যবসায় জড়িত। এছাড়াও ফলজ বাগান, কৃষিপণ্য উৎপাদন, হাঁস-মুরগী ও গবাদিপশু পালনে সাফল্যে এনে দিয়েছে সহ¯্রাধিক নারী উদ্যোক্তাকে। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও প্রশিক্ষণবিহীন শতাধিক নারী বিউটিশিয়ান পেশায় জড়িত হয়েছেন।

উল্লেখ্য যে, ২০১৫সালের বেইজিং এ আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলনে ১৫ অক্টোবরকে গ্রামীণ নারী দিবস পালনের ঘোষণা দেন। ২০০৭সালের ১৮ডিসেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ স্বীকৃতি পায়। এ থেকে বাংলাদেশেও ১৫ অক্টোবর আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত হয়ে আসছে।

টি.কে ওয়েভ-ইন