পূর্বধলায় করোনার লক্ষন নিয়ে আরো এক জনের মৃত্যু, ৭ বাড়ি লকডাউন

তিলক রায় টুলুঃ

পূর্বধলায় সর্দি কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে রমজান আলী (৩৮) নামে আরো একজনের মৃত্যু হয়েছে।
এ ঘটনায় তার বাড়িসহ আশে পাশের ৭ টি বাড়ি লকডাউন করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।
সোমবার (৬ এপ্রিল) রাত ৯টার দিকে উপজেলার গোহালাকান্দা ইউনিয়নের কিছমত বারেঙ্গা গ্রামের নিজ বাড়ীতে তার মৃত্যু হয়। সে শ্যামগঞ্জ বাজারের রহিমের খাবার হোটেলে চাকুরি করতো। সে ও্ই গ্রামের মৃতঃ আব্দুল আজিজের পুত্র।
পূর্বধলায় এ নিয়ে ৪৮ ঘন্টার ব্যবধানে করোনা ভাইরাস সন্দেহে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।
শ্যামগঞ্জ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার ডা. ওয়াহীদুর রহমান খান মামুন জানান, সোমবার দুপুর একটার দিকে তিনি সহ ডা. কনক প্রভা নন্দীর উপস্থিতিতে ল্যাব টেকনিশিয়ান খায়রুল ইসলাম রোগীর সোয়াপ সংগ্রহ করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে টেষ্টের জন্য নমুনা প্রেরণ করেন। এর ৮ ঘন্টা পরেই সে মারা যায়।
ডা. মামুন আরো জানান, মৃতঃ রমজান আলীর ১০/১৫ বছর আগে টিবি রোগ হয়েছিল। পরে সে সুস্থ্য ছিল। গত কয়েকদিন ধর সে সর্দি কাশি ও শ্বাসকষ্টে রোগে ভুগছিল। গতকাল রবিবার তার এক ভাতিজা ফোন করে জানান তার চাচার শরীরে সদি কালি শ্বাসকষ্ট সহ বিভিন্ন উপস্বর্গ নিয়ে ভূগছেন তাই তার নমুনা সংগ্রহ করার জন্য এর পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়।
পূর্বধলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে কুলসুম তার মৃত্যুর সংবাদটি নিশ্চিত করে বলেন, যেহেতু মৃত্যুর পূবেই ওই র‌্যাক্তির নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে তাই রির্পোট আসার পরেই তার মৃত্যুর প্রকৃত কারন জানা যাবে।
মৃত্যুর পর পরই মৃত ব্যাক্তির বাড়ীসহ আশপাশের ৭টি বাড়ী লকডাউন করে রাখা হয়েছে।