আজ বৃহস্পতিবার ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৯, ৭ই জুলাই ২০২২

শিরোনাম:
প্রধান প্রতিবেদক || দৈনিক বাহাদুর
  • প্রকাশিত সময় : মার্চ, ১, ২০২২, ৭:৩৩ অপরাহ্ণ




‘ন্যায্যতার ভিত্তিতে সহকারী শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড বাস্তবায়ন চাই’

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড বাস্তবায়ন আন্দোলনের অংশ হিসেবে ‘ন্যায্যতার ভিত্তিতে সহকারী শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড বাস্তবায়ন চাই’ অভিন্ন স্লোগানে শিক্ষকদের প্রোফাইলের ছবি বদলে নিচ্ছেন ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকবৃন্দ। এ দাবিকে সমর্থন জানিয়েছেন উপজেলার ১৭৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকগণ।

প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক ১০ম গ্রেড বাস্তবায়ন সমন্বয় পরিষদের ব্যানারে লাল আর সবুজের রঙের লগোতে ছবির সঙ্গে শিক্ষকরা দিচ্ছেন দু’টি স্লোগান ‘কোন লেজুড়বৃত্তি নয়, দাবি আদায়ে আমরা সোচ্চার’। অপর স্লোগানটি হলো ‘ন্যায্যতার ভিত্তিতে সহকারী শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড বাস্তবায়ন চাই।’
সোমবার (২৮ ফেব্রুয়ারি/২০২২) আন্দোলনের অন্যতম নেতা মো. জাকির হোসেন জানান, আমরা চরমভাবে বৈষম্যের শিকার হয়েছে। দেশে স্নাতক পাশের যোগ্যতায় অন্য পেশায় ৯ গ্রেড দেওয়া হয়েছে। অথচ সহকারী শিক্ষকদের দেওয়া হয়েছে ১৩তম গ্রেড। ডিপ্লোমা (এইচএসসি সমমান) করে নার্স ও কৃষি উপ-সহকারীগণ ১০ গ্রেডে বেতন পাচ্ছেন। আর ‘মানুষ গড়ার কারিগর’ খ্যাত আমাদেরকে দেয়া হচ্ছে ১৩তম গ্রেডের বেতন। তাই অচিরেই গ্রেড বৈষম্য বিলোপ করে সহকারী শিক্ষকদের দশম গ্রেড ঘোষণার দাবি জানাচ্ছি।

এ প্রসঙ্গে প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক ১০ম গ্রেড বাস্তবায়ন সমন্বয় পরিষদ গৌরীপুর উপজেলার সমন্বয়কারী মহসিন মিয়া জানান, গৌরীপুরের শতভাগ শিক্ষক এ দাবিতে আন্দোলন করছেন। সারাদেশের শিক্ষকগণও সরকারের প্রতি শতভাগ আস্থা রেখে আমরা আমাদের কথা বলে যাচ্ছি। আমরা মানবতার জননী জননেত্রী শেখ হাসিনা এর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।
আব্দুল ওয়াহেদ মেমোরিয়াল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. ফারুকুল ইসলাম বলেন, সহকারী শিক্ষকদের গ্রেড বৈষম্য হ্রাস করে অচিরেই ১০ম গ্রেড তথা দ্বিতীয় শ্রেণির মর্যাদা দেওয়ার জন্য সরকারের নিকট আকুল আবেদন জানাচ্ছি।
শিক্ষক নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি ব্যাপকভাবে সাধিত হলেও শিক্ষকদের জীবনমানের উল্লেখযোগ্য কোনো উন্নতি হয়নি। মাথাপিছু আয় ২০১৫ সালের তুলনায় বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ। অথচ সহকারী শিক্ষকদের বেতন তেমনটা বাড়েনি। এমতাবস্থায় নিত্যপণ্যের মূল্য বৃদ্ধিসহ জীবনযাত্রার ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় মানবেতর জীবন যাপন করছে শিক্ষকরা।
ইব্রাহিম স্মৃতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. আজহারুল ইসলাম বলেন, লাল-সবুজ খচিত স্বাধীনতার রঙের অবয়বে এই প্রোফাইলের ছবি আমাদের মুক্তির প্রোফাইল, সম্মানজনকভাবে শিক্ষকদের বেঁচে থাকার অধিকার আদায়ের প্রোফাইল।




Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও খবর




অনলাইন জরিপ

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেছেন, দেশে যত উন্নতি হচ্ছে, বৈষম্য তত বাড়ছে। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?

View Results

Loading ... Loading ...

পুরনো সংখ্যার নিউজ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১