আজ মঙ্গলবার ১৪ই ফাল্গুন, ১৪৩০, ২৭শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪

শিরোনাম:
দৈনিক যুগান্তর ২৫ বছরে পদার্পণ উপক্ষে গৌরীপুরে এসএসসি ১৭ ব্যাচের মিলনমেলা দৈনিক যুগান্তর ২৫ বছরে পদার্পণ উপক্ষে গৌরীপুরে এসএসসি ১৭ ব্যাচের মিলনমেলা শবে বরাত সম্পর্কে হাদিস ও এর ফজিলত তারাকান্দায় ঘোড়ামারা খাল ভরাট করে পানি নিস্কাশনের ব্যাঘাত সৃষ্টি করা ১৩ গ্রামের দূর্ভোগ ময়মনসিংহ জেলা ডিপ্লোমা মেডিকেল এসোসিয়েশনে মাহফুজ আহ্বায়ক সদস্য সচিব শহিদুল্লাহ! চিনির দাম বাড়ল কেজিতে ২০ টাকা তারাকান্দায় ঋন দেয়ার প্রলোভনে কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়েছে প্রতারকচক্র, ম্যানজার আটক ২৫ বছরে যুগান্তর : গৌরীপুরের শিশু উৎসব জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা পদকে গৌরীপুরে সেরা দু’স্বজন গৌরীপুরে বিএনপির লিফলেট বিতরণ কর্মসূচিতে পুলিশের বাঁধা \ সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার-৩
বাহাদুর ডেস্ক || ওয়েব ইনচার্জ
  • প্রকাশিত সময় : ডিসেম্বর, ২৪, ২০২৩, ৫:০৪ অপরাহ্ণ




তেইশের বিজয়ী তরুণেরা

বিদায় নিচ্ছে ২০২৩। বছরটা কেমন গেল বাংলাদেশের তরুণদের? আমাদের এই উন্মাদ দুনিয়ায় যারা নতুন অতিথি, যারা তাল গাছের মতো মাথা তুলে দাঁড়াতে শুরু করেছেন নিজেদের কাজ দিয়ে, প্রতিনিধিত্বশীল এই স্বপ্নবাজদের কাজ আমাদের দায়িত্ব-কর্তব্য ও স্বপ্ন-সম্ভাবনাকে উস্কে দেয় প্রতিনিয়ত। বছরজুড়ে সাহসে উঠে আসা এমন পাঁচ তরুণের সাফল্য বা অর্জনের কথা তুলে ধরেছেন আশিক মুস্তাফা

এশিয়ার প্রথম হিট অফিসার বুশরা

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান আর্শট-রকফেলার ফাউন্ডেশন বুশরা আফরিনকে চিফ হিট অফিসার বা প্রধান তাপ নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিজাস্টার সায়েন্স ও ক্লাইমেট রেজিলিয়েন্সের আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট হলে এক অনুষ্ঠানে এ নিয়োগের ঘোষণা দেওয়া হয়। প্রতিষ্ঠানের সব ধরনের শর্ত পূরণ করেই ৩ মে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে প্রধান তাপ নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ পান বুশরা। আর্শট-রকফেলার ফাউন্ডেশন বিশ্বের বিভিন্ন শহরে জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় তাদের কাজের অংশ হিসেবে প্রধান তাপ নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা নিয়োগ দেয়। প্রতিষ্ঠানটি প্রথম প্রধান তাপ নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা নিয়োগ দেয় ২০২১ সালে। বুশরার আগে প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকে আরও সাত নারীকে প্রধান তাপ নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেয়।

ঢাকার তাপমাত্রা যেন পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। এর শুরুটা গত এপ্রিলে। কেবল ঢাকাই নয়; ভয়াবহ তাপপ্রবাহের কবলে পড়ে পুরো দেশ। কয়েক জেলায় তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়িয়ে যায়। ঢাকার তাপমাত্রার পারদ চড়ে রেকর্ড ৪০ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। রেকর্ডের খেরোখাতা খুললে দেখা যায়, রাজধানীতে এটি গত ছয় দশকের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। বিশ্বব্যাংকের ২০২১ সালের এক প্রতিবেদনে উঠে আসে, দেশের আগামীর দিনগুলো এমন আরও ভয়াবহ তাপপ্রবাহের কবলে পড়বে। এমনই এক সংকটে ৩ মে বুশরা আফরিন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ‘চিফ হিট অফিসার’ বা প্রধান তাপ নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তার দায়িত্ব পান।

বুশরার জন্ম ও বেড়ে ওঠা ঢাকার আলো-হাওয়া গায়ে মেখেই। স্কুলের পাঠও নেন ঢাকাতেই। তবে মাধ্যমিকের গণ্ডি পেরিয়ে পাড়ি জমান কানাডায়। সেখানেই উচ্চমাধ্যমিকের পাঠ চুকিয়ে কুইন্স ইউনিভার্সিটিতে উচ্চশিক্ষা নেন গ্লোবাল ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজে। ঘানার ইনস্টিটিউট অব লোকাল গভর্নমেন্টেও লেখাপড়া করেন বুশরা। তখনই ঘানার বলগাটাঙ্গায় একটি নারী উন্নয়ন প্রকল্পে কাজ শুরু করেন। এক সময় দেশে ফিরে বেসরকারি একটি উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী হিসেবে কাজ করেন। দেশের প্রাণী অধিকার সংস্থা অভয়ারণ্যের পলিসি কনসালট্যান্ট হিসেবে ডিএনসিসির সঙ্গে কাজ করেছেন।

নিজের কাজ ও আগামীর পরিকল্পনা সম্পর্কে বুশরা আফরিন বলেন, ‘দরিদ্র দেশগুলোর অনেক গুরুত্বপূর্ণ শহর জলবায়ু ও পরিবেশগত ভয়াবহ হুমকির মুখে রয়েছে। যদি ঢাকার দিকে তাকান তবে দেখবেন, ২ কোটি ২০ লাখের বেশি জনসংখ্যা নিয়ে ঢাকাও এই শহরগুলোর তালিকায় পড়ে। প্রতিদিন দুই হাজারের বেশি মানুষ ঢাকায় আসছেন কেবল বসবাসের উদ্দেশ্যে। থাকার অন্য কোনো উপায় না পেয়ে অনেকেই বস্তিতে থাকছেন। এই বস্তিগুলোয় পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা ও খাওয়ার পানির ঘাটতি আছে। দিন দিন বাড়তে থাকা জনসংখ্যার ঘনত্বের কারণে সংকটে পড়া ঢাকার তাপমাত্রা গ্রামাঞ্চলের চেয়ে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি বেড়ে যেতে পারে আগামীতে। সত্যি কথা বলতে সবাই ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। শুধু আমার মেয়ের জন্য নয়; বরং সব শিশুর জন্য শীতল ও আরও সমতার একটি ভবিষ্যৎ বিনির্মাণে কাজ করতে চাই।’

ফোর্বসে নবনীতা

ফোর্বস প্রথমবারের মতো ‘৩০ আন্ডার ৩০ লোকাল টরন্টো’ তালিকা প্রকাশ করে। তালিকায় উঠে আসা তরুণদের কেউ শহরে নিরাপদ ড্রোন চলাচলে সহায়তা করেন, কেউ উচ্ছিষ্ট খাবার থেকে বিকল্প প্লাস্টিক বানান, কেউবা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা দিয়ে লেখা শনাক্তকারী নির্মাণসামগ্রী তৈরি করেন। ফোর্বসের মতে, বর্তমানে কানাডায় ব্যবসা ও প্রযুক্তিজীবনের কেন্দ্রে অবস্থান করছে টরন্টো। এখানে তরুণরা নানা উদ্ভাবনী ধারণা, উদ্ভাবনী উদ্যোগ নিয়ে কাজ করছেন, যা ভবিষ্যৎ দুনিয়াকে তাক লাগিয়ে দেবে। সে কারণেই টরন্টোর জন্য আলাদা তালিকা করেছে ফোর্বস। তালিকায় তরুণ গবেষক ও উদ্যোক্তা হিসেবে স্থান পান বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নবনীতা নাওয়ার ও থাই বংশোদ্ভূত পিমুয়াপা মানসিয়ংকুল। তারা দু’জন এইচডিএএক্স থেরাপিউটিকস নামে টরন্টোভিত্তিক একটি প্রতিষ্ঠানের সহ-প্রতিষ্ঠাতা। ফোর্বসের মতে, নবনীতা ও পিমুয়াপার এইচডিএএক্স থেরাপিউটিকস প্রথমবারের মতো পেরিফেরাল নিউরোপ্যাথির চিকিৎসা বা ওষুধের উন্নয়নে কাজ করছে, যা বিশ্বের তিন কোটির বেশি মানুষের কাজে লাগবে। ক্যান্সার চিকিৎসার জন্য নেওয়া কেমোথেরাপি, ডায়াবেটিস, কোনো আঘাত বা জিনগত কারণে ক্ষতিগ্রস্ত স্নায়ুর ফলে ব্যথা, বোধহীনতা, পক্ষাঘাত ও চলনহীনতায় ভোগেন পিএন রোগীরা। এ রোগের এখনও কোনো ওষুধ নেই, যা এর বেড়ে ওঠা ঠেকাতে পারে। এইচডিএএক্স ২০২৫ সালের প্রথম দিকে রোগীদের আশা জাগানোর মতো ওষুধ তৈরি করতে যাচ্ছে। নারী নেতৃত্বে চলা দলটি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা পিএন রোগীদের জীবন রঙিন করে তুলতে পারে। ক্যান্সার গবেষণার সেরা ক্লিনিকগুলোর সঙ্গে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি। ইউনিভার্সিটি অব টরন্টোতে পাঁচ বছরের গবেষণার পর প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এইচডিএএক্স। এটি পরিচালনা করছেন পিএচডি ডিগ্রিধারী উদ্যোক্তারা। নতুন ওষুধ আবিষ্কারের জন্য এইচডিএএক্স এ পর্যন্ত ৮ লাখ মার্কিন ডলার তহবিল সংগ্রহ করেছে। নবনীতা নাওয়ার ও পিমুয়াপা মানসিয়ংকুল ছাড়া আরও দু’জন সহ-প্রতিষ্ঠাতা রয়েছেন এইচডিএএক্স থেরাপিউটিকসে। তারা হলেন– নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. রোমান ফ্লেক এবং টরন্টো বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক প্যাট্রিক গানিং।

করভীর উদীয়মান তরুণ নেতার স্বীকৃতি

১৩তম বাংলাদেশি হিসেবে এশিয়ার নোবেলখ্যাত র‍্যামন ম্যাগসাইসাই পুরস্কারের তালিকায় যুক্ত হলেন ‘জাগো ফাউন্ডেশন’-এর প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক করভী রাখসান্দ। ৩১ আগস্ট ফিলিপাইন থেকে ঘোষিত এ পুরস্কারে চলতি বছর একমাত্র বাংলাদেশি হিসেবে এ স্বীকৃতি পেয়েছেন করভী। এ বছর করভী রাখসান্দের সঙ্গে সম্মানজনক এ পুরস্কার পেয়েছেন আরও তিনজন। তাঁরা হচ্ছেন– ভারতের রবি কান্নান, পূর্ব তিমুরের ইগুয়েনিও লেমোস ও ফিলিপাইনের মিরিয়াম করোনেল-ফেরের। র‍্যামন ম্যাগসাইসাই অ্যাওয়ার্ডের জন্য করভীকে নির্বাচিত করার ক্ষেত্রে পুরস্কার কমিটি র‍্যামন ম্যাগসাইসাই বোর্ড অব ট্রাস্টিজের পক্ষ থেকে বলা হয়, একটি সচ্ছল ও আরামদায়ক জীবনযাপনের সকল সুবিধা থাকা সত্ত্বেও তা থেকে সরে এসে করভীর সুবিধাবঞ্চিতদের জন্য নিরলস কাজ করা এবং শিক্ষার গণতন্ত্রীকরণে তাঁর শক্তিশালী, দূরদর্শী নেতৃত্ব হাজার হাজার তরুণকে অনুপ্রাণিত করছে। পুরস্কার কমিটি করভীর অদম্য চেতনা, দূরদর্শী নেতৃত্ব এবং সামাজিক রূপান্তরের প্রতি অটল প্রতিশ্রুতির জন্য তাঁকে অভিনন্দনও জানান।

সেরার তালিকায় শেখ মোরসালিন

১৯ বছর বয়সী টিংটিঙে এক তরুণ। এই বুঝি বৈশাখের ঝোড়ো হাওয়া উড়িয়ে নিয়ে যাবে! অথচ এই হ্যাংলা-পাতলা ছেলেটাই এএফসির ওয়েবসাইটে তারকা পারফর্মারদের তালিকায় উঠে এসেছে। বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় রাউন্ডে লেবাননের বিপক্ষে ম্যাচটি ছিল এশিয়ান কাপের সরাসরি বাছাইও। গত ১৬ ও ২১ নভেম্বর বাছাইয়ে পুরো এশিয়ায় মোট ৩৬টি ম্যাচ হয়েছে। সেখান থেকে সেরা ৮ জন পারফর্মারের নাম ঘোষণা করেছে এএফসি। এ তালিকায় ঠাঁই করে নিয়েছেন মোরসালিন। সেরা পারফর্মারদের এ তালিকায় আরও আছেন দক্ষিণ কোরিয়ার সন হিউং মিন, অস্ট্রেলিয়ার হ্যারি সাউটার, ইরানের মেহেদি তারেমি, কাতারের আলমোয়েজ আলি ও সৌদি আরবের সালেহ আল শেহরির মতো তারকারা। মোরসালিনকে ‘বিস্ময়বালক’ আখ্যা দিয়ে এএফসি লিখেছে- বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে বাংলাদেশ যখন লেবাননের বিপক্ষে ১-০ গোলে পিছিয়ে, তখন ডান পায়ের জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করে বিশ্বমঞ্চে নিজের জানান দেন ১৮ বছর বয়সি এ তরুণ। গত এপ্রিলে সবাইকে অবাক করে জাতীয় দলে ডাক পান মোরসালিন। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশকে সেমিফাইনালে তুলতে বড় অবদান রাখেন তিনি। দুটি গোল ও একটি অ্যাসিস্ট ছিল তাঁর। সব মিলিয়ে বাংলাদেশের জার্সিতে তাঁর গোল চারটি। বাংলাদেশের জার্সিতে এখন পর্যন্ত বেশ সফল মোরসালিন। মাত্র ৯ ম্যাচ খেলে ৪ গোল করেছেন তিনি। এর মধ্যে লেবাননের বিপক্ষে ডি-বক্সের বাইরে থেকে তাঁর করা গোলটা অনেকদিন চোখে লেগে থাকার মতো। সাফের গত আসরেও এমন দারুণ একটি গোল করেছিলেন তরুণ এই স্ট্রাইকার। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে লাল-সবুজের জার্সি গায়ে মালদ্বীপ ও ভুটানের দিকে তাকান তিরিক্ষি চোখে! মনে করিয়ে দেন ‘মেঘ দেখে কেউ করিসনে ভয়, আড়ালে তার সূর্য হাসে’ ভাবসম্প্রসারণটি। মাঝমাঠ মাতানো এই তরুণ একে একে মালদ্বীপ ও ভুটানের জালে বল পাঠিয়ে ঠিকই আলো ছড়িয়ে দেন বাংলার ফুটবল জ্বরাক্রান্তদের মেঘলা আকাশে। এ যেন প্যারাসিটামলের জায়গায় অ্যান্টিবায়োটিক! ঘাম দিয়ে যেন জ্বর ছাড়ে লাল-সবুজের দর্শকের। নড়েচড়ে বসে ফুটবল দুনিয়াও।

সেরা বিজ্ঞানীর তালিকায় গাউসিয়া ও সেঁজুতি সাহা

সিঙ্গাপুরভিত্তিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সাময়িকী এশিয়ান সায়েন্টিস্ট। সাময়িকীটি ২০১৬ সাল থেকে প্রতিবছর এশিয়ার সেরা ১০০ বিজ্ঞানীর তালিকা প্রকাশ করে আসছে। ২০২৩ সালের তালিকায় উঠে এসেছেন বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় অবদান রাখা গুরুত্বপূর্ণ বিজ্ঞানীরা। যেখানে স্থান পেয়েছেন জিনতত্ত্ব, ভূতাত্ত্বিক গঠন থেকে শুরু করে মহাকাশ বিজ্ঞানসহ বিভিন্ন শাখার গুরুত্বপূর্ণ বিজ্ঞানীরা। সেরাদের এ তালিকায় জায়গা করে নেওয়া বিজ্ঞানী গাউসিয়া ওয়াহিদুন্নেসা চৌধুরী গবেষণা করেছেন প্লাস্টিক দূষণ এবং প্রকৃতি ও মানুষের জীবনের ক্ষতিকর প্রভাব নিয়ে। অণুজীববিজ্ঞানী সেঁজুতি সাহা কাজ করছেন অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ‘চাইল্ড হেলথ রিসার্চ ফাউন্ডেশন’-এর পরিচালক হিসেবে। এশিয়ার শীর্ষ ১০০ বিজ্ঞানীর তালিকায় আরও জায়গা পেয়েছেন চীন, ভারত, মালয়েশিয়া, পাকিস্তান, সিঙ্গাপুর, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, ফিলিপাইন, হংকং, শ্রীলঙ্কা, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনামের মেধাবী বিজ্ঞানীরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক, বিজ্ঞানী গাউসিয়া ওয়াহিদুন্নেসা চৌধুরী গবেষণা করেছেন প্লাস্টিক দূষণ এবং প্রকৃতি ও মানুষের জীবনের ক্ষতিকর প্রভাব নিয়ে। প্রায় ১৫ বছরের বেশি সময় ধরে বাংলাদেশের বিপন্ন জলাশয় ও প্রাণিকুল নিয়ে গবেষণা করে আসছেন তিনি। অন্যদিকে তালিকায় জায়গা করে নেওয়া অণুজীববিজ্ঞানী সেঁজুতি সাহা কাজ করছেন অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ‘চাইল্ড হেলথ রিসার্চ ফাউন্ডেশন বা সিএইচআরএফ’-এর পরিচালক হিসেবে। যেখানে তাঁর তাৎপর্যপূর্ণ কাজ ছিল শিশুদের ঘিরে। সেঁজুতি সাহা বিশ্বে প্রথম প্রমাণ করেন, চিকুনগুনিয়া ভাইরাস শুধু রক্তে নয়, শিশুর মস্তিষ্কেও বিস্তার লাভ করতে পারে, এবং এর ফলে মেনিনজাইটিসও হতে পারে, যা মস্তিষ্কপর্দার প্রদাহ মস্তিষ্ক বা সুষুম্নাকাণ্ডের আবরণকারী পর্দা প্রদাহজনিত একটি রোগ।




Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও খবর




অনলাইন জরিপ

জাতিসংঘের বিশেষ দূত এলিস ক্রুজ বলেছেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সুফল সব মানুষের কাছে পৌঁছাচ্ছে না। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?

View Results

Loading ... Loading ...

পুরনো সংখ্যার নিউজ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯