তারাকান্দায় ইউএনও চিত্রা শিকারী’র অগ্রনী ভূমিকা

রফিক বিশ্বাস।।
মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া (কোভিড-১৯) করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে প্রতিদিন সকাল থেকে রাত্রী পর্যন্ত সাধারণ মানুষকে ঘরে রাখতে ও সচেতনতা স্মৃষ্টির মাধ্যমে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অপ্রয়োজনে ঘুরাফেরা ঠেকাতে, জনসমাগম কমাতে, নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকান ব্যতিত অন্যান্য দোকান খোলা ও বন্ধ রাখাসহ সরকারি নির্দেশনা মানুষকে মানাতে কঠোর অবস্থানে ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলা প্রশাসন।
উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় জনসমাগম এড়িয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা, হাটবাজার বন্ধ রাখাসহ সবাইকে ঘরে থাকতে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক প্রশাসন নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহন করেছে।
প্রশাসন মাইকিংয়ের মাধমে প্রচারণা চালাচ্ছেন। জরুরি কাজ ছাড়া কেউ যেন অযথা ঘরের বাইরে বের না হন এমনটিই নির্দেশনা দিচ্ছেন তারা। প্রশাসনের পাশে দাঁড়িয়েছেন কর্তব্যরত সাংবাদিকরা। তারাও প্রশাসনের সাথে ঘর থেকে বের হয়ে আসা সাধারণ মানুষদের সচেতন করছেন। পাশাপাশি তারা সচেতনামূলক প্রচার প্রচারণা অব্যাহত রেখেছেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) চিত্রা শিকারীর নেতৃত্বে প্রতিদিন সেনাবাহিনী, পুলিশ,আনসার ও গ্রাম পুলিশের সহযোগিতায় ১০টি ইউনিয়নের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সার্বক্ষণিক টহল জোরদার রেখেছেন।
তারাকান্দা উপজেলা প্রশাসনকে সার্বিকভাবে সহয়োগিতা করে যাচ্ছেন সেনাবাহিনী,ও, তারাকান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)আবুল খায়ের।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার চিত্রা শিকারী জানান, করোনাভাইরাসের প্রভাব যাতে এ উপজেলায় না পড়ে সে লক্ষে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী মানুষকে ঘরে রাখার জন্য নানামুখী প্রচার-প্রচারণাসহ ছিন্নমুল অসহায় দারিদ্র মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী
বিতরণ করা হচ্ছে ।
এর পরও বিভিন্ন অজুহাতে মানুষ বাহিরে এসে যত্রতত্র সংঘবদ্ধ হয়ে আড্ডা দিচ্ছে এবং অকারনে ঘুরাফেরা করচ্ছে। যা মোটেও কাম্য নয়।
তিনি আরো বলেন, ফোনকল, মেসেজ ও মেসেঞ্জারের মাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে সরেজমিনে যাচাইপূর্বক বাড়ি বাড়ি খাদ্য সহায়তা উপহার প্রেরণ করছি। উপজেলা প্রশাসন আপনাদের পাশে আছে। আপনারা ঘরে থাকুন,নিরাপদে থাকুন।