জাতির ঘাড়ে বোঝা

জাতির ঘাড়ে বোঝা
আজম জহিরুল ইসলাম

সমাজটা যাচ্ছে কোথায়
নর্দমা না ভাগাড়ে
হরেক রকম অন্যায় কর্ম
চলছে একনাগারে।

ভাসছে দেশটা ইয়াবাতে
ডুবছে যুব-তরুণরা
ধ্বংস করছে জীবনটাকে
ভবিষ্যতের অরুণরা।

গুম আতংক বিরাজমান
ভয় ছাড়ে না পিছু
কে কখন গুমের শিকার
যায় না বলা কিছু।

ধর্ষণ-হত্যা যাচ্ছে বেড়ে
বাদ যাচ্ছে না শিশুরা
ধর্ষণকারীর হয় না বিচার
থাকে সেতো অধরা।

রাস্তাঘাটে চলতে গেলে
বেড়ে যায় হার্টবিট
ছিনতাইকারী কখন এসে
চাকু মেরে করে হিট।

বহু নারীর পুড়ছে কপাল
যৌতুকেরই অভিশাপ
দুঃখ-কষ্টে জীবন কাটে
বলো সেটা কার পাপ?

চলছে হরদম চাঁদাবাজি
তাক করা পিস্তল
ভয় দেখিয়ে নিচ্ছে কেড়ে
গরিবের সম্বল।

কথায় কথায় ঝগড়া বাধে
মানুষ হয় যে লাশ
স্বার্থের জন্য ভুল করে না
পাছায় দিতে বাঁশ!

মেয়েরা যায় শিাঙ্গনে
বখাটেরা শিষ দেয়
অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে
শরীরেতে বিষ দেয়!

বেতন-ভাতা বাড়লো ঠিকই
ঘুষ বাণিজ্য কমেনি
এতো কিছু পাওয়ার পরেও
একচুলও দমেনি।

জাতির ঘাড়ে বিরাট বোঝা
নামবে কবে মাটিতে
আমরা আছি নরক জ্বালায়
পারছি না আর হাঁটিতে।