গৌরীপুরে নিহত মেধাবী তিথি পাল পেলো ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি!

প্রধান প্রতিবেদক :
ময়মনসিংহের গৌরীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত তিথি পাল এবার ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছে। সে গৌরীপুর পৌর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ছিলো।
মধ্যবাজার চাল মহালের বাসায়।
সে ১৩জানুয়ারি সোমবার গৌরীপুর পৌর শহরের মধ্যবাজারে কোচিংয়ে যাওয়ার পথে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয় তিথি পাল। আহত হয় তার বান্ধুবী রূপা চক্রবর্তী। এ হত্যাকান্ডের বিচারের দাবিতে গৌরীপুর উপজেলা সদরে টানা ১০দিন মানববন্ধন-বিক্ষোভ মিছিলে উত্তাল হয়ে উঠে। দু’জনেই প্রাথমিক সমাপনি পরীক্ষায় গৌরীপুর পৌর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে জিপিএ-৫ পায়। সদ্য প্রকাশিত ফলাফলে তিথি পাল ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার মনিকা পারভীন। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক একেএম মাজহারুল আনোয়ার ফেরদৌস জানান, পৌর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তিথি পালসহ এ বিদ্যালয়ে ট্যালেন্টপুলে ১৫জন ও সাধারণ গ্রেডে ৩জন ছাত্রছাত্রী বৃত্তি পেয়েছে।


তিথি পালের মা রীতা পাল সোমবার (২মার্চ/২০২০) এ প্রতিনিধিকে বলেন, চালক আর মালিকপক্ষের কেউ এলো না-আমাদের একবার খবর নিতে, অথচ সবাই ছাড় পেলো। আমি তো ছাড় পাইনি! এখনও তিথি আমার আঁচলে টেনে ধরে, এপাশ-ওপাশ দৌড়ে- আমার তিথি; আমিতো ৪৯দিনের মাঝে এক মুর্হূতের জন্যও ভুলতে পারেনি। সন্তানের বিচার নিয়ে শংকিত তিনি পালের বাবা রঞ্জন কুমার পালও। তিনি জানান, আমার মেয়ের ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছে, তিথি নেই; কোন আবদার আজ নেই। আমাদের আবদার ছিলো- দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি; চালক হেলপারের মুক্তি- ট্রাকও ছাড়, হত্যাকান্ডের আদো বিচার হবে কী?
এদিকে মামলার তদন্তকারী অফিসার মোঃ বাহারুল ইসলাম জানান, বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে মালিকের জিম্মায় ট্রাক হস্তান্তর করা হয়েছে। বিজ্ঞ আদালত ট্রাকের চালক ও হেলপারের জামিন দিয়েছেন। আমরা ডাক্তারী রির্পোটের অপেক্ষায় আছি। তদন্ত কাজ সমাপ্তির পথে-রির্পোট পেলেই চার্জশীট প্রদান করা হবে।


জানায় যায়, ১৩জানুয়ারি সোমবার সকালে দু’বান্ধুবী মিলে যাচ্ছিলো প্রতিভা কোচিং সেন্টারে। শহরের পাটবাজার এলাকায় রাস্তা থেকে ৪ফুট দুরত্বে ছিলো তিথি পাল ও তার বান্ধুবী রূপা চক্রবর্তী। পিছন দিক থেকে দ্রুতগামী বালুবাহী লরি ট্রাক তাদের চাপা যায়। ছিটকে পড়ে যায় রূপা চক্রবর্তী আর তিথি পালের নিহর দেহ ট্রাকের পিছনের দু’চাকায় আবারও পিষ্ট হয়ে যায়। ওরা দু’জনই ৫ম শ্রেণিতে জিপিএ-৫ পায়। ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হয় গৌরীপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে। তিথি পাল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সমাপনি পরীক্ষায় উপজেলায় মেধা তালিকায় ৫ম স্থান অর্জন করেছিলো। সংগীতেও প্রথম অর্জন করে। তিথি পাল ট্রাকচাপায় নিহতের প্রতিবাদে কাস বর্জন করে ঘাতক ট্রাকচালক ও হেলপারের বিচারের দাবিতে সে সময় দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল, গাড়ী ভাংচুর, টায়ারে অগ্নিসংযোগ, সড়ক অবরোধ করে অবস্থান ও মানববন্ধনে উত্তাল হয়ে উঠেছিলো গৌরীপুর পৌর শহর।
এরপরেও থামেনি গৌরীপুরে মৃত্যুর মিছিল।