গণমানুষের বিজয়ের প্রতীক ‘নারিকেল গাছ’, ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভাবাসীর উন্নয়নের প্রতীক

ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী আব্দুস ছাত্তার কমাণ্ডারের ব্যাপক গণসংযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি :
বিগত পৌরসভা নির্বাচনে নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হন ঈশ্বরগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমাÐার বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো. আব্দুস ছাত্তার। নির্বাচনী বিজয়ী হয়ে ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভাকে মডেল পৌরসভায় রূপ দেয়ার জন্য ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যান। ৭১’রে যুদ্ধ করেছিলেন শত্রু’র বিরুদ্ধে, এবার যুদ্ধ করেন দুর্নীতির বিরুদ্ধে।
সুযোগ্য মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো.আব্দুস ছাত্তার মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বুকে লালন করে পথ চলেছেন অবিরাম; কখনো বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে পিছপা হয়নি। তাঁরই আদর্শে গণ মানুষের সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করতে চান বলে জানিয়েছেন ময়মনসিংহ জেলার ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সুযোগ্য পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস ছাত্তার।
পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় ঈশ্বরগঞ্জ থানা আক্রমন করতে গিয়ে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী কর্তৃক গ্রেনেড চার্জে আহত হই, আমার সাথের সাতজন বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করার অপরাধে ঈশ্বরগঞ্জের মুসলিমলীগ, রাজাকার, আলবদর ও পাকিস্তানী হানাদাররা আমার বাড়ী-ঘর পুড়িয়ে দেয়। আমার বাবা কাদির উদ্দিন আহমেদ ও আমার বড় ভাই রইছ উদ্দিন আহমেদকে গাছে লটকিয়ে অমানুষিক নির্যাতন করে দীর্ঘ দিন। ১৯৭৫ সালে পাকিস্তানের দালাল কর্তৃক বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হলে ঈশ্বরগঞ্জে আমি আওয়ামী লীগের নেতাদের সাথে নিয়ে প্রতিবাদ করলে খন্দকার মোস্তাক ও জিয়াউর রহমান সরকার কর্তৃক গ্রেফতার হই। হত্যার প্রতিবাদ করায় দীর্ঘদিন কারাবরণ করি।
পৌর মেয়র বলেন, জনগণের ভালোবাসায় ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হয়ে পৌরসভার ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। পৌরসভায় যেসব উন্নয়ন কাজ সমাপ্ত হয়েছে এবং যেগুলো চলমান রয়েছে তা আমার আমলেই সরকার থেকে বরাদ্ধ হয়েছে। বরাদ্ধকৃত অর্থে যে উন্নয়ন আমি করতে পেরেছি আর যেটুকু বাকি রয়েছে আগামী দিনে যদি পৌরবাসী আমাকে নির্বাচিত করে তাহলে পৌরসভার উন্নয়নের কোন কিছুই বাকী থাকবে না। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে জীবনবাজী রেখে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছিলাম। যুদ্ধউত্তরকালে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হওয়ার কারণে দলের কোন পদে থেকে সক্রিয় ভাবে রাজনীতি করতে পারিনি। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন সৈনিক।
মুক্তিযুদ্ধের হাতিয়ার গর্জে উঠুক আরেকবার স্লোগানে ‘ইতিবাচক পরিবর্তনের লক্ষে, জয় হোক মেহনতি মানুষের পক্ষে’ এমন স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভা। সেই বিজয়ীদের প্রতীক নারিকেল গাছ এবারও পেয়েছেন ঈশ্বরগঘঞ্জ পৌরসভার সুযোগ্য মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো.আব্দুস ছাত্তার। সোমবার (১১ জানুয়ারি/২০২১) এ প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পরে পৌরসভার পাড়া-মহল্লায় নেতাকর্মী, কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে ব্যাপক গণসংযোগ করেন। এ যেন চারদিকে একটাই স্লোগান ‘গণমানুষের বিজয়ের প্রতীক ‘নারিকেল গাছ’, ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভাবাসীর উন্নয়নের প্রতীক ‘নারিকেল গাছ’।

Print Friendly, PDF & Email