করোনার প্রতিবেদন : অনামিকা সরকার

করোনার প্রতিবেদন

অনামিকা সরকার

হে করোনা
করুনা কর
দূরে চলে যাও, বহুদূরে
যেখানে তোমার আদি জন্ম নক্ষত্র
অনেক তো হলো
আমরা গোটা বিশে^র
দেশবাসী স্তম্ভিত।

যেখানে তুমি দিয়েছো
পরিবারের সবাইকে সমন্বয়
ভালোবাসার আন্তরিকতা
হে করোনা তোমার কারণে
সবাই সবাইকে বুঝেছে
জেনেছে চিনেছে
তদরুপ
তেম তোমার ভয়বহতায় আমরা পাড়া-প্রতিবেশী
জন মানব ছাড়া
বন্দী জীবনে ঘরে বসে আছি
কারণ তুমি ছোঁয়াচে
বিভিন্ন দেহে প্রবেশ করছো

করোনা নিয়ে বাঙালী
করছে বাড়াবাড়ি
চীন দেশে জন্ম হলো
এ রোগের মহামারী
প্রথমে ছড়ায় চীনে
পরে ছড়ায় ইতালীতে
আস্তে আস্তে আক্রান্ত হচ্ছে
এখন গোটা বিশ্নে।

লুকিয়ে লুকিয়ে চা-খাওয়া
আড্ডা দেওয়া, ফুটবল খেলা
আমি বরছি
না না খেয়ে ফুটবল না খেলে
আড্ডা না জমিয়ে
ঘরে বসে সময় দিন
পরিবারের লোকজনকে।

আমি দেখে স্তম্ভিত
প্রতিদিনই বাঙালীর
ঘরে ঘরে রসনাবিলাস
বাঙালী কিনছে মাছ মাংস সবজি
লুকিয়ে লুকিয়ে চায়ের দোকানে চায়ের
পেলায় দেয় চুমুক
পাড়ার মোড়ে মোড়ে
কয়েকজন মিলে জোট হচ্ছে।

আমি ভয় পাচ্ছি
তবু বাঙালীর মনে ভয় নেই
আমি বলছি ঘরে থাকুন
সিদ্ধ ভাত খান
বাহিরে যাবেন না।

দিন আসবে কিন্তু
স্বজন হারালে আসবে না।

মাসের মাস লকডাউন হচ্ছে
যেখানে ভাইরাস ছড়াতে
বহুদিন লাগতো
সেখানে এখন দ্রুত ছড়াচ্ছে।

পুলিশের একার দ্বারা
করোনা মোকাবিলা করা সম্ভব হচ্ছে না
যদি নিজেদের সচেনতা না থাকে
কারণ পুলিশের সাথে চোর পুলিশ খেলছে না
এ যেন যমের সঙ্গে চোর পুলিশ খেলছে।