অসহায়-দুঃস্থ-বিপর্যস্ত এ্যাথলেটদের পাশে বিএএফ

করোনার এই দুর্যোগে সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন এড.আব্দুর রকিব মণ্টু

অনলাইন ডেস্ক :

করোনাকালীন এই দুর্যোগে বিএএফ অসহায় ও সুবিধাবঞ্চিত সাবেক ও বর্তমান এ্যাথলেটদের পাশে দাঁড়িয়ে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো।
করোনা ভাইরাসে বিশ্বের মানুষ যখন আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ও মানসিক ভাবে আতঙ্কিত ও বিপর্যস্ত, তখন বাংলাদেশ এ্যাথলেটিক ফেডারেশন সংক্ষেপে বি এ এফ অসহায় ও সুবিধাবঞ্চিত নতুন ও সাবেক এ্যাথলেটদের পাশে আর্থিক সহযোগিতা নিয়ে এগিয়ে এসেছে। আমরা জানি দেশের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক এ্যাথলেট আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল সাধারণ পরিবার থেকে আসে। বিশেষ করে করোনা ভাইরাসের কারণে অনেকেই ইতিমধ্যে চাকুরী হারিয়েছেন। অনেক বর্তমান ও সাবেক খেলোয়াড অনেক কষ্টে দিন যাপন করছেন। উল্লেখ্য, সাবেক এ্যাথলেট সামিউল ইসমাল, বুলবুলি খাতুন ও কবিতা রায় এবং গত মিটে হাইজ্যাম্প পা ভাঙা আরিফুজ্জামান আর্থিক ভাবে খুব খারাপ অবস্হায় রয়েছেন। তাদের পাশে দাঁড়ানো উচিত বলে আমি মনে করি – এ কথাগুলো বলেছেন ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক ও সাবেক জাতীয় এ্যাথলেট এডভোকেট আব্দুর রকিব মন্টু।
তিনি বলেন, বাংলাদেশে আমরাই প্রথম খেলোয়াড়ের কথা চিন্তা করে একটি প্লাটফর্ম তৈরি করেছি,যেখানে ফেডারেশনের সাবেক খেলোয়াড়, কর্মকর্তা ছাড়াও অনেক বন্ধু বান্ধব, আত্মীয় স্বজন ও শুভাকাঙ্খী রযেছেন তাদের নিয়ে আমরা একটি হোয়াটস আপ গ্রুপ তৈরী করেছি।
আমি সবার সাথে ব্যাক্তিগত ভাবে আমার ফেডারেশনের পক্ষ থেকে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছি। অন্যরাও সহযোগিতা করছেন।আমরা ১০ লক্ষ টাকার তহবিল গড়ার লক্ষ্যে সবার কাছে সাহায্যের জন্য আবেদন জানিয়েছি । আমরা খুব ভাল সাড়া পেয়েছি এবং সবাই এই বিষয়টাকে খুবই গুরুত্বের সাথে বিবেচনায় নিয়ে সাহায্যর হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। ইতিমধ্যে আমরা ৬ লাখ টাকার প্রতিশ্রুতি পেয়েছি। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ৩ লাখেরও বেশী অর্থ ব্যাংকে জমা পড়েছে।কেউ কেউ ১০ হাজার কেউ ৫ হাজার কেউবা ২০০০ হাজার চাঁদা দিয়েছেন। সব চাইতে বড় কথা হচ্ছে যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী এগিয়ে এসেছেন তার জন্য আমরা বি এফ এর পক্ষে থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। তাদের এই অনুদান থেকে ইতিমধ্যে আমরা খেলোয়াড়দের আর্থিক সহযোগিতা করতে সক্ষম হয়েছি। এই তহবিল কিভাবে বন্টন করবেন এবং কারা কারা সহযোগিতা পাবেন – এমন প্রশ্নের উত্তরে এড.আব্দুর রকিব মন্টু বলেন সাবেক জাতীয় খেলোয়াড় এবং নতুন খেলোয়াড় যারা মানবেতর জীবন যাপন করছেন এবং বিশেষ করে যারা করোনা ভাইরাসের কারনে বিজিএম সিই’র চাকুরী হারিয়েছেন তাদের পাশে আমরা দাঁড়িয়েছি এবং তাদের কে এই ফান্ড থেকে আর্থিক সহযোগিতা করবো।
আমরা ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের দৃষ্টি আকর্ষন করছি এবং ইতিমধ্যে আমরা যোগাযোগ করেছি। আশা করি তারও এগিয়ে আসবেন। সেই সাথে দেশের বিত্তবান ব্যক্তিবর্গের কাঁছে অনুরোধ করছি আপনারা দেশের সূর্য্যসন্তাদের পাশে এই মহাবিপদের সময় একটু সাহায্যের হাত প্রসারিত করুন। আপনাদের সামান্য অনুদান একজন অসুস্থ অসহায় মানুষ কে দিতে পারে নতুন জাবনের অনাবিল আনন্দ।
আপনারা সাহায্য পাঠাতে পারেন সরাসরি আমাদের ব্যাংকে কিংবা পাঠাতে পারেন বিকাশের মাধ্যমে।ABDUR ROKIB:A/C no 4435434056995, Sonali Bank, Bangladesh Supreme Court Branch, Dhakaবিকাশ : BKash no 01716208920.

সূত্র : নিউজ ৭১